Latest Notes

A Shipwrecked Sailor (Lesson 11) Bengali Meaning | Questions – Answers | Class 9 Class 8 English Text Bengali Meaning | Questions and Answers | WBBSE The Man Who Planted Trees (Lesson 13) Bengali Meaning (বঙ্গানুবাদ) | Questions & Answers | Class 8 English Essay on Uses and Abuses of Mobile Phones Midnight Express (Lesson 11) Bengali Meaning (বঙ্গানুবাদ) | Questions & Answers | Class 8 The Three Greedy Men story | Moral Stories The Hidden Treasure Story | A Farmer and his Three Lazy Sons The Wolf and the Lamb Story |Moral Stories Biography of Kshudiram Bose | Paragraph on Khudiram Bose Tales of Childhood (Lesson 10) Bengali Meaning (বঙ্গানুবাদ) | Questions -Answers | Class 8

About the Writer and the Story : 

Avul Pakir Jainulabdeen Abdul Kalam (1931-2015) was one of the pioneers of aerospace engineering in India. For a major part of his life he worked as a scientist in Indian space programmes. Some of his famous works are India 2020, Ignited Minds, Wings of Fire. He was the President of India from 2002 to 2007.

আবুল পাকির জৈনুলব্দীন আবদুল কালাম (১৯৩১-২০১৫) ছিলেন ভারতের মহাকাশ যন্ত্রবিজ্ঞানের অগ্রদূতদের মধ্যে একজন । জীবনের একটি বড় অংশ তিনি ভারতীয় মহাকাশ কর্মসূচিতে বিজ্ঞানী হিসেবে কাজ করেছেন। তাঁর কিছু বিখ্যাত গ্রন্থ হল India 2020, Ignited Minds, Wings of Fire। ২০০২ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত তিনি ভারতের রাষ্ট্রপতি ছিলেন।

Strong Roots is an extract from Dr. Kalam’s autobiography Wings of Fire. In this extract, he talks about his childhood in his hometown. The piece presents a delightful sketch of the author’s early life and the development of his spiritual growth.


Strong Roots হল ডাঃ কালামের আত্মজীবনী Wings of Fire থেকে নেওয়া একটি অংশ । এখানে তিনি তাঁর নিজের শহরে তাঁর শৈশব সম্পর্কে কথা বলেছেন। এই লেখাটি লেখকের প্রাথমিক জীবন এবং তাঁর আধ্যাত্মিক চেতনার বিকাশের একটি আনন্দদায়ক চিত্র উপস্থাপন করে।

Strong Roots -APJ Abdul Kalam -Bengali meaning line by line

I was born into a middle-class Tamil family in the island town of Rameswaram in the erstwhile Madras state.

আমি পূর্বেকার মাদ্রাজ রাজ্যের রামেশ্বরমের দ্বীপ শহরের একটি মধ্যবিত্ত তামিল পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলাম।

My father, Jainulabdeen, had neither much formal education nor much wealth;

আমার পিতা, জৈনুলাব্দীনের বেশি প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাও ছিল না আবার অনেক সম্পদও ছিল না;

despite these disadvantages, he possessed great innate wisdom and a true generosity of spirit.

এই প্রতিকূলতা সত্ত্বেও, তিনি মহান সহজাত প্রজ্ঞা এবং আত্মার প্রকৃত উদারতার অধিকারী ছিলেন।

He had an ideal helpmate in my mother, Ashiamma.

তিনি আমার মা, আশিয়াম্মার মধ্যে একজন আদর্শ জীবনসঙ্গিনীকে পেয়েছিলেন।

I do not recall the exact number of people she fed every day,

তিনি প্রতিদিন কতজনকে খাওয়াতেন তার সঠিক সংখ্যাটি আমার মনে নেই,

but I am quite certain that far more outsiders ate with us than all the members of our own family put together.

তবে আমি সম্পূর্ণ নিশ্চিত যে আমাদের নিজের পরিবারের সমস্ত সদস্যের চেয়ে অনেক বেশি বহিরাগতরা আমাদের সাথে খেতেন।

My parents were widely regarded as an ideal couple.

একটি আদর্শ দম্পতি হিসেবে আমার বাবা-মা এর প্রচুর সুখ্যাতি ছিল।

My mother’s lineage was the more distinguished,

আমার মায়ের বংশ ছিল বেশি প্রসিদ্ধ,

one of her forebears having been bestowed the title of ‘Bahadur’ by the British.

তার পূর্বপুরুষদের একজনকে ব্রিটিশরা ‘বাহাদুর’ উপাধিতে ভূষিত করেছিল।

I was one of many children-a short boy with rather undistinguished looks, born to tall and handsome parents.

আমি অনেক সন্তানের মধ্যে একজন ছিলাম-স্বতন্ত্র চেহারার, লম্বা এবং সুদর্শন পিতামাতার সন্তান।

We lived in our ancestral house, which was built in the middle of the 19th century.

আমরা আমাদের পৈতৃক বাড়িতে থাকতাম, যা উনিশ শতকের মাঝামাঝি সময়ে নির্মিত হয়েছিল।

It was a fairly large pucca house, made of limestone and brick, on the Mosque Street in Rameswaram.

রামেশ্বরমের মস্ক স্ট্রীটে এটি ছিল মোটামুটি বড়মাপের চুনাপাথর এবং ইটের তৈরি একটি বাড়ি।

My austere father used to avoid all inessential comforts and luxuries.

আমার কঠোর সংযমী বাবা সবরকম অপ্রয়োজনীয় আরাম এবং বিলাসিতা এড়িয়ে চলতেন।

However, all necessities were provided for, in terms of food, medicine or clothing.

যাইহোক, খাদ্য, ওষুধ বা পোশাকের ক্ষেত্রে সমস্ত প্রয়োজনীয়তা মেটানো হয়েছিল।

In fact, I would say mine was a very secure childhood, materially and emotionally.

প্রকৃতপক্ষে, আমি বলব আমার শৈশব বস্তুগত এবং মানসিকভাবে খুব নিরাপদ ছিল।

I normally ate with my mother, sitting on the floor of the kitchen.

আমি সাধারণত আমার মায়ের সাথে রান্নাঘরের মেঝেতে বসে খেতাম।

She would place a banana leaf before me,

তিনি আমার সামনে একটি কলা পাতা বিছিয়ে দিতেন,

on which she then ladled rice and aromatic sambar, a variety of sharp, home-made pickle and a dollop of fresh coconut chutney.

যার উপর তিনি হাতা দিয়ে দিতেন ভাত ও সুগন্ধি সম্বার, বিভিন্ন ধরনের বাড়িতে তৈরি ঝাঁঝালো আচার এবং একদলা তাজা নারকেলের চাটনি।

The Shiva temple, which made Rameswaram so famous to pilgrims, was about a ten-minute walk from our house.

শিব মন্দির, যা রামেশ্বরমকে তীর্থযাত্রীদের কাছে খুবই বিখ্যাত করে তুলেছিল, আমাদের বাড়ি থেকে প্রায় দশ মিনিটের হাঁটা পথ দূরে।

Our locality was predominantly Muslim,

আমাদের এলাকা প্রধানত মুসলিম আধ্যুষিত ছিল,

but there were quite a lot of Hindu families too, living amicably with their Muslim neighbours.

কিন্তু সেখানে অনেক হিন্দু পরিবারও ছিল, যারা তাদের মুসলিম প্রতিবেশীদের সাথে সৌহার্দ্যপূর্ণভাবে বসবাস করত।

There was a very old mosque in our locality where my father would take me for evening prayers.

আমাদের এলাকায় একটি খুব পুরোনো মসজিদ ছিল যেখানে আমার বাবা আমাকে সন্ধ্যার নামাজের জন্য নিয়ে যেতেন।

I had not the faintest idea of the meaning of the Arabic prayers chanted,

আরবি প্রার্থনায় যা গাওয়া হতো তার অর্থ সম্পর্কে আমার ক্ষীণতম ধারণাও ছিল না,

but I was totally convinced that they reached God.

কিন্তু আমি সম্পূর্ণরূপে নিশ্চিত ছিলাম যে সেগুলি ঈশ্বরের কাছে পৌঁছাত।

When my father came out of the mosque after the prayers,

প্রার্থনার পরে আমার বাবা যখন মসজিদ থেকে বেরিয়ে আসতেন,

people of different religions would be sitting outside, waiting for him.

বিভিন্ন ধর্মের লোকেরা বাইরে বসে তার জন্য অপেক্ষা করতেন।

Many of them offered bowls of water to my father, who would dip his fingertips in them and say a prayer.

তাদের মধ্যে অনেকেই আমার বাবাকে জল ভরা পাত্র দিতেন, তিনি সেগুলির মধ্যে তার আঙ্গুলের ডগা ডুবিয়ে একটি প্রার্থনা উচ্চারণ করতেন।

This water was then carried home for invalids.

এই জল তখন পঙ্গু বা দুর্বল ব্যক্তিদের জন্য বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হত।

I also remember people visiting our home to offer thanks after being cured.

আমার এও মনে আছে লোকেরা সুস্থ হওয়ার পরে ধন্যবাদ জানাতে আমাদের বাড়িতে এসেছিলেন।

Father always smiled and asked them to thank Allah, the merciful.

বাবা সবসময় হাসতেন এবং দয়াময় আল্লাহকে ধন্যবাদ জানাতে বলতেন।

The high priest of Rameswaram temple, Pakshi Lakshmana Sastry, was a very close friend of my father’s.

রামেশ্বরম মন্দিরের প্রধান পুরোহিত, পক্ষী লক্ষ্মণ শাস্ত্রী, আমার বাবার খুব ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন।

One of the most vivid memories of my early childhood is of the two men, each in traditional attire, discussing spiritual matters.

আমার শৈশবের সবচেয়ে উজ্জ্বল স্মৃতিগুলির মধ্যে একটি হল দুজন পুরুষ মানুষ, প্রত্যেকেই নিজের নিজের ঐতিহ্যবাহী পোশাকে, আধ্যাত্মিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করছেন।

When I was old enough to ask questions, I asked my father about the relevance of prayer.

আমার যখন প্রশ্ন করার বয়স হয়েছিল, আমি আমার বাবাকে প্রার্থনার প্রাসঙ্গিকতা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেছিলাম।

My father told me there was nothing mysterious about prayer.

আমার বাবা আমাকে বলেছিলেন যে প্রার্থনা সম্পর্কে রহস্যজনক কিছুই নেই।

Rather, prayer made possible a communion of the spirit between people.

বরং, প্রার্থনা মানুষের মধ্যে আত্মার মিলন সম্ভব করে।

“When you pray,” he said,

“তুমি যখন প্রার্থনা কর,” তিনি বলেছিলেন,

“you transcend your body and become a part of the cosmos, which knows no division of wealth, age, caste, or creed.”

“তুমি তোমার শরীরকে অতিক্রম কর এবং মহাবিশ্বের একটি অংশ হয়ে ওঠ, যা ধনসম্পদ, বয়স, জাত বা ধর্মের কোন বিভাজন জানে না।”

My father could convey complex spiritual concepts in very simple, down-to-earth Tamil.

আমার বাবা জটিল আধ্যাত্মিক ধারণাগুলিকে খুব সহজভাবে, সাধারণ তামিল ভাষায় প্রকাশ করতে পারতেন।

He once told me, “In his own time, in his own place, in what he really is, and in the stage he has reached – good or bad-every human being is a specific element within the whole of the manifest divine Being.

তিনি একবার আমাকে বলেছিলেন, “তার নিজের সময়ে, তার নিজের জায়গায়, সে আসলে যা, এবং যে পর্যায়ে সে পৌঁছেছে-ভাল বা খারাপ- প্রতিটি মানুষ প্রকাশিত ঐশ্বরিক সত্তার সমগ্রতার মধ্যে একটি নির্দিষ্ট উপাদান।

So why be afraid of difficulties, sufferings and problems?

তাই বাধাবিপত্তি, দুঃখ কষ্ট এবং সমস্যা নিয়ে ভয় পাওয়া কেন?

When troubles come, try to understand the relevance of your sufferings.

যখন সমস্যা আসে, তোমার দুঃখ কষ্টের প্রাসঙ্গিকতাকে বোঝার চেষ্টা কর।

Adversity always presents opportunities for introspection.”

প্রতিকূলতা সর্বদাই আত্মবিশ্লেষণের বা নিজেকে চেনার সুযোগ প্রদান করে। ”

“Why don’t you say this to the people who come to you for help and advice?” I asked my father.

“যারা সাহায্য এবং পরামর্শ নেওয়ার জন্য তোমার কাছে আসে তাদেরকে তুমি এটা বল না কেন?” বাবাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম।

He put his hands on my shoulders and looked straight into my eyes.

তিনি আমার কাঁধে তার হাত রাখলেন এবং সরাসরি আমার চোখের দিকে তাকালেন।

For quite some time he said nothing, as if he was judging my capacity to comprehend his words.

বেশ কিছুক্ষণ তিনি কিছুই বললেন না, যেন তিনি তাঁর কথাগুলো আমার বোঝার ক্ষমতা বিচার করছিলেন।

Then he answered in a low, deep voice.

তারপর তিনি নিচু, গভীর কণ্ঠে উত্তর দিলেন।

His answer filled me with a strange energy and enthusiasm:

তার উত্তর আমাকে একটি অদ্ভুত শক্তি এবং উদ্দীপনায় পূর্ণ করল:

“Whenever human beings find themselves alone, as a natural reaction, they start looking for company.

“যখনই মানুষ নিজেকে একা মনে করে, স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া হিসাবে, তারা সঙ্গ খুঁজতে শুরু করে।

Whenever they are in trouble, they look for someone to help them.

যখনই তারা সমস্যায় পড়ে, তারা তাদের সাহায্য করার জন্য অন্য কাউকে খোঁজে।

Whenever they reach an impasse, they look to someone to show them the way out.

যখনই তারা কোনো অচলাবস্থায় পৌঁছায়, তখন তারা তাদের পথ দেখানোর জন্য কারো দিকে তাকায়।

Every recurrent anguish, longing, and desire finds its own special helper.

প্রতিটি পুনরাবৃত্তি যন্ত্রণা, আকাঙ্ক্ষা, এবং ইচ্ছা তার নিজস্ব বিশেষ সাহায্যকারীকে খুঁজে পায়।

For the people who come to me in distress,

আমার কাছে যেসকল মানুষেরা মুশকিলে পড়ে আসে,

I am but a go-between in their effort to propitiate demonic forces with prayers and offerings.

তাদের প্রার্থনা এবং নিবেদনের মাধ্যমে পৈশাচিক শক্তিদের প্রসন্ন করার প্রচেষ্টায় আমি তাদের মধ্যস্থতাকারি মাত্র।

This is not a correct approach at all and should never be followed.

এটি মোটেও সঠিক দৃষ্টভঙ্গি নয় এবং কখনই অনুসরণ করা উচিত নয়।

One must understand the difference between a fear-ridden vision of destiny and the vision that enables us to seek the enemy of fulfilment within ourselves.”

একজনকে অবশ্যই ভাগ্যের ভীত-সন্ত্রস্ত দৃষ্টিভঙ্গি এবং সেই দৃষ্টিভঙ্গির মধ্যে পার্থক্য বুঝতে হবে যা আমাদের নিজেদের মধ্যে পরিপূর্ণতার শত্রু খুঁজতে সক্ষম করে।”

I remember my father starting his day at 4 am by reading the namaz before dawn.

আমার মনে আছে আমার বাবা ভোরের আগে নামাজ পরার মাধ্যমে ভোর চারটার সময় তাঁর দিন শুরু করতেন। 

After the namaz, he used to walk down to a small coconut grove we owned, about four miles from our home.

নামাজের পর, তিনি আমাদের বাড়ি থেকে প্রায় চার মাইল দূরে আমাদের মালিকানাধীন একটি ছোট নারকেল বাগানে হাঁটতেন।

He would return with about a dozen coconuts tied together thrown over his shoulder, and only then would he have his breakfast.

তিনি কাঁধে একসঙ্গে বাঁধা প্রায় এক ডজন নারকেল নিয়ে ফিরতেন এবং কেবল তখনই তিনি তার প্রাতঃরাশ করতেন।

This remained his routine even when he was in his late sixties.

সত্তরের কাছাকাছি বয়সেও এটাই ছিল তার রুটিন।

I have, throughout my life, tried to emulate my father in my own world of science and technology.

আমি আমার সারা জীবনে আমার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির জগতে আমার বাবাকে অনুকরণ করার চেষ্টা করেছি।

I have endeavoured to understand the fundamental truths revealed to me by my father,

আমার বাবা আমার কাছে যে মৌলিক সত্যগুলি তুলে ধরেছিলেন, আমি তা অনুধাবন করার চেষ্টা করেছি,

and feel convinced that there exists a divine power that can lift one up from confusion, misery, melancholy and failure, and guide one to one’s true place.

এবং আমি বিশ্বাস করতাম যে এমন একটি ঐশ্বরিক শক্তি আছে যা একজনকে বিভ্রান্তি, দুর্দশা, বিষাদ এবং ব্যর্থতা থেকে উত্তোলন করতে পারে এবং একজনকে তার আসল জায়গায় পথ দেখাতে পারে।

And once an individual severs his emotional and physical bond, he is on the road to freedom, happiness and peace of mind.

এবং একবার কোনো ব্যক্তি যখন তার মানসিক এবং শারীরিক বন্ধন ছিন্ন করতে পারে, সে মুক্তি, সুখ, এবং মানসিক শান্তির পথে উপনীত হয়।

Read more ⬇️

The Eyes have It- Ruskin Bond

Strong Roots- APJ Abdul Kalam

Thank You Ma’am- Langston Hughes

The Three Questions- Leo Tolstoy

On Killing a Tree- Gieve Patel

Asleep in the Valley- Arthur Rimbaud

Shall I Compare Thee- William Shakespeare

The Poetry of Earth- John Keats

Spread the love